• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ২৫ এপ্রিল, ২০২২
সর্বশেষ আপডেট : ২৫ এপ্রিল, ২০২২
Designed by Nagorikit.com

দাউদকান্দিতে ১২ বেদে পরিবার পাচ্ছে জায়গাসহ ঘর

কুমিল্লা জার্নাল

দাউদকান্দিতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রচেষ্টায় ১২টি বেদে পরিবার পাচ্ছে জায়গাসহ ঘর

এইচএম দিদার : ঝড় তুফান, আর বিক্ষুব্ধ ঝড় জ্বঞ্চাট ছিল তাদের জীবনের দোসর!
ছিলো না মাথা গুজার ঠাঁই,গোমতীর বুকে ডিঙি নৌকায় ছিলো তাঁদের আশ্রয়।

বছর দুই আগে এদের জীবনাচার নিয়ে ফলাও করে প্রতিবেদন করেছিলাম— আমাদের সময়.কম ও আমাদের নতুন সময়ে।
নিউজ হওয়ার পর বেঁদে সম্প্রদায়ের লোকদেরকে তাৎক্ষণিক সরেজমিনে দেখতে যান দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ এর মানবিক চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী,মানবিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম খান।

বেঁদে সম্প্রদায়ের লোকদের দাবির প্রেক্ষিতে সেইদিন উভয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তাদেরকে মাথা গুজার ঠাঁই করে দেওয়া হবে।
বিভিন্ন প্রাকৃতিক প্রতিকূল মুহূর্তেও বেঁদে সম্প্রদায়দের মাঝে মাঝে খোঁজখবরও নেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পক্ষ থেকে।
করোনাকালীন সময়সহ যেকোনো দুর্যোগে ত্রাণসামগ্রী পাঠিয়ে তাদেরকে সহায়তা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম খান।

পরবর্তীতে আরও দুএকজন সাংবাদিকও সেই প্রতিবেদন করেছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম খান জানান,” কুমিল্লা বিজ্ঞ জেলা প্রশাসক মহোদয় মোহাম্মদ কামরুল হাসান স্যারের সরাসরি তত্ত্বাবধানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহহীন ও আশ্রয়ন প্রকল্পের আওতায় পৌরসভার মধ্যে গোমতী নদীর পাশে একটি মনোরম পরিবেশে প্রায় প্রথম পর্যায়ে শতাধিক ঘর তৈরী হচ্ছে।

এসব ঘরগুলো স্বচ্ছতার ভিত্তিতে গৃহহীনদের মাঝে আমরা বিতরণ করবো।
এরমধ্যে গোমতীতে ভাসমান ১২ টি বেঁদে সম্প্রদায় জায়গাসহ ঘর পাবে।”

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান এর নির্দেশে ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম খানের পক্ষে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুকান্ত সাহা মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে ১২ টি বেঁদে সম্প্রদায়ের পরিবারকে ১২ টি ঘর ও জায়গা দেওয়ার বিষয়টির বার্তা পৌঁছে দেন ঐসব পরিবারের কর্তাদের কাছে।

 

আরও পড়ুন

  • বৃহত্তর কুমিল্লা এর আরও খবর