• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩
Designed by Nagorikit.com

তিতাসে ভুট্টা চাষে কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে

কুমিল্লা জার্নাল

জুয়েল রানা, তিতাস প্রতিনিধি:

অল্প খরচে বেশী লাভ হওয়ায় কুমিল্লার তিতাসে দিন দিন ভুট্টা চাষে আগ্রহ বাড়ছে। পশু খাদ্য তৈরিতে ভুট্টার ব্যবহার সবচেয়ে বেশি হওয়ায় সারা বছর ভুট্টার চাহিদা থাকে এবং অন্যান্য ফসলের তুলনায় ভুট্টা চাষে খরচ কম, ঝুঁকিহীন, কম পরিশ্রমে বেশি ফসল, সেচ ও সার প্রয়োগের সুবিধা থাকায় কৃষকেরা এ ফসল চাষে দিন দিন আগ্রহী হয়ে উঠছে।

 

জমির মাটি উর্বর ও আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবছর ফলন বেশ ভালো হবে বলে আশা করছে কৃষকরা।

 

উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্য মতে, গত বছর এই উপজেলায় ১ হাজার ২৬৫ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে। যা চলতি মৌসুমে উপজেলার নয়টি ইউনিয়নে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ভুট্টার চাষ হয়েছে। এবং ফেব্রুয়ারি মাস জুড়ে আরো ভুট্টা চাষ করবে বলে জানা গেছে।

 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার কলাকান্দি, বলরামপুর, ভিটিকান্দি, জগতপুর, সাতানী ও মজিদপুর ইউনিয়নে মাঠ জুড়ে কৃষকরা অনেক ভুট্টা চাষ করেছেন। যা চোখে পড়ার মতো। ইতোমধ্যে গাছে গাছে ফুল এসেছে, কিছু গাছে ভুট্টা পরিপক্ব হতে শুরু করেছে।

 

কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কানিপ্রতি (৩০ শতাংশ) খরচ হয়েছে সাত থেকে আট হাজার টাকা। ফলন পাওয়া যাচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ মণ। গত বছর প্রতি মণ ভুট্টার দাম যেখানে ছিল ১ হাজার থেকে ১২০০ টাকা, সেখানে চলতি বছর তা দেড় হাজার টাকা ছাড়িয়ে গেছে।

 

ঐচারচর গ্রামের কৃষক বাবুল বলেন, আমি এবছর ১ কানি জমিতে ভুট্টা চাষ করেছি, ফলন ভালো হয়েছে। আশা করছি লাভবান হবো।

 

মাছিমপুর গ্রামের কৃষক ফারুক ও কালাইগোবিন্দপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন বলেন, অন্যান্য ফসলের চেয়ে ভুট্টা চাষে খরচ তুলনামূলক কম। এছাড়া ভুট্টার কোন কিছুই ফালানি যায় না। এর পাতা গরুকে খাওয়ানো যায় এবং ডাটা ও মোচা লাকড়ি হিসেবে ব্যবহার করা যায়। বাজারে চাহিদা ও দামও ভালো তাই এ বছর এবছর ২ কানি জমিতে ভুট্টা আবাদ করেছি। যদি আশানুরূপ ফলন ও দাম পাই তাহলে আগামী বছর বেশি জমি চাষ করবো।

 

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সালাহ উদ্দিন বলেন, তিতাস উপজেলায় কয়েক বছর ধরে ভুট্টার আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কারন এটি খুব সহজে চাষাবাদ করা যায়, বিশেষত রোগবালাই হয় না এবং পরিচর্যাও খুব বেশি করতে হয় না।

 

এছাড়া ভালো দাম পাওয়ায় প্রতিবছর কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে ভুট্টা চাষে। তিনি আরো বলেন, ভুট্টা চাষিদের যাবতীয় কারিগরি সহযোগিতাসহ সরকারিভাবে সার, বীজ দেওয়া হয়েছে।আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবার ভালো ফলন হবে।

আরও পড়ুন

  • লিড এর আরও খবর