• ঢাকা
  • রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ১১ মার্চ, ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট : ১১ মার্চ, ২০২৩
Designed by Nagorikit.com

কুমিল্লা ট্রমা সেন্টারে ঠোঁট কাটা ও তালুকাটা রোগীদের ফ্রী অপারেশনের ১৩ তম বর্ষ উদযাপন

কুমিল্লা জার্নাল

জাহিদ হাসান নাইম||

একটু হাঁসিতে বদলে যেতে পারে একজন ব্যক্তি, একটি পরিবারের জীবন। জন্মগত কাটা ঠোঁট ও ফাটা তালু কেড়ে নিতে পারে সব। কিন্তু ছোট একটা অপারেশন ফিরিয়ে দিতে পারে সেই সুখের হাঁসি। সমস্যায় আক্রান্তদের একেবারে বিনামূল্যে অপারেশন ও চিকিৎসার সুযোগ নিতে পারেন কুমিল্লা ট্রমা সেন্টারে।

গতকাল শনিবার (১১ মার্চ) কুমিল্লা ট্রমা সেন্টার ও স্মাইল ট্রেনের যৌথ উদ্যোগে ঠোঁট কাটা, তালু কাটা রোগীদের ফ্রী অপারেশনের ১৩ বছর পূর্তি উপলক্ষে কুমিল্লা ট্রমা সেন্টারের কনফারেন্স হলে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন মেয়র আরফানুল হক রিফাত। এসময় তিনি  যারা এই উদ্যোগের সাথে জড়িত তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

ট্রমা সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আবদুল হক বলেন,
শিশুদের মুখে হাসি ফোটাতে কাজ করি আমরা। মানুষের জন্য কাজ করি আমরা। আর আমাদের এই মহৎ কাজ অব্যহত থাকবে।

এসময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হসপিটালের প্রাক্তন পরিচালক  ডা. মুজিব রহমান, স্মাইল ট্রেন ইউএসএর প্রোগ্রাম ডিরেক্টর এ বি এম মোবাশ্বের হোসেন, স্মাইল ট্রেন ক্লেফট প্রজেক্ট এর চিফ সার্জন ও প্রজেক্ট ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. শরিফ হাছান, বার্ণ প্লাস্টিক রিকনস্ট্রাক্টিভ ও কসমেটিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ আজাদ, এনেস্থেশিয়া বিভাগের প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক ডা. ওয়াকেলী মন্ডল, এনেস্থেশিয়া বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. আফজালুর রহমান। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা ট্রমা সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোঃ আবদুল হক।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর প্রায় ৬ হাজার শিশু ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা সমস্যা নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। বিভিন্ন বয়সী ২ লাখ মানুষ এখানো চিকিৎসার বাইরে। অন্তত ৫ কেজি ওজনের ৩ মাস বয়স থেকে শুরু করে কাটা ঠোঁট এবং ৯-১০ মাস বয়স থেকে ফাটা তালু রোগীদের অপারেশন করা হয়।

কাটা ঠোঁট ও ফাটা তালু এ সমস্যার সঠিক কারণ জানা না গেলেও এটি কোনো বংশগত রোগ নয়। এ সমস্যা নিয়ে সবার মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি ও কুসংস্কার মুক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আয়োজকরা।

কাটা ঠোঁট ও ফাটা তালু সমস্যায় শারিরিক সমস্যার সঙ্গে মানসিক রোগ সৃষ্টি এবং সামাজিক অবহেলার শিকার হতে হয়। অথচ একটু সচেতন হয়ে ছোট একটা অপারেশনের মাধ্যমে এ রোগের চিকিৎসা করে স্বাভাবিক জীবনযাপন সম্ভব।

আর এই স্মাইল ট্রেন-ইউএসএ বিশ্বের সর্ববৃহৎ কাটা ঠোঁট ও ফাটা তালু বা টাকরা রোগের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান। স্মাইল ট্রেন বিশ্বের ৮৭টি দেশে বিনামূল্যে এ চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছে। বাংলাদেশে তারা ২০০৩ সাল থেকে এ কার্যক্রম চালাচ্ছে। আর এরই ধারাবাহিকতায় কুমিল্লায়ও ২০১০ সালে শুরু হয় তাদের উদ্যোগে। আর এই উদ্যোগে অংশ নেয় কুমিল্লা ট্রমা সেন্টার। কুমিল্লা ট্রমা সেন্টার ও স্মাইল ট্রেনের যৌথ উদ্যোগে এই পর্যন্ত প্রায় ৮ হাজার রোগীর ফ্রী অপারেশন ও চিকিৎসা করানো হয়।

অনুষ্ঠানে কাটা ঠোঁট ও ফাটা তালুর চিকিৎসাসহ আক্রান্তদের পরিচর্যার বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন দেন স্মাইল ট্রেন ক্লেফট প্রজেক্ট এর চিফ সার্জন ও প্রজেক্ট ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. শরিফ হাছান।

এসময় অনুষ্ঠানে যারা চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছে বা চিকিৎসাধীন রয়েছে তারা উপস্থিত ছিলেন। সবাই এই উদ্যোগের সাথে জড়িত সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

আরও পড়ুন

  • কুমিল্লা এর আরও খবর